Wedding Lehenga কিভাবে পছন্দ করবেন

/
/
/
104 Views

বর্তমানে মেয়েরা বিয়ের পোশাক হিসেবে প্রথম পছন্দ করে শাড়ি। কিন্তু হালের ট্রেন্ড অনুসরন করে অনেক মেয়েরা আজকাল বেছে নিচ্ছেন বাহারি রঙ-বেরঙ এবংবাহারি ডিজাইনের লেহেঙ্গা।

নিজের বিয়েতে শাড়ি সবাই পড়ে। তাই আপনার ইচ্ছা জাগতেই পারে নিজেকে একটু রকম ভিন্নভাবে উপস্থাপন করতে। তাই বেছে নিতে পারেন শাড়ির পরিবর্তে লেহেঙ্গা। তাছাড়া, যুগের সাথে তাল মেলানোর একটা ব্যাপারও থাকতে পারে। লেহেঙ্গাও কিন্তু অনেক ধরনের বিভিন্ন ডিজাইনের হয়। অনেক ধরনের কারুকাজ, রঙ-বেরঙ এর ডিজাইন করা থাকে লেহেঙ্গার গায়ে।

লেহেঙ্গার সব থেকে বড় সুবিধা হচ্ছে, শাড়ির মত লেহেঙ্গা সামলানো অত ঝামেলা নয়,বরং আরও সহজ। এই পোষাকটি তিনটি অংশে বিভক্ত থাকে, তাই বেশ সহজেই সামলে নিতে পারবেন । লম্বা সময় ধরে চলা গায়ে হলুদে, বিয়ের অনুষ্ঠানে,বৌভাতে এসব  অনুষ্ঠানগুলোয় কনেরা বেছে নিতেই পারেন লেহেঙ্গা। কোন রকম অস্বস্তি লাগবে না আপনার, এবং বেশ আরামদায়কভাবেই পুরো অনুষ্ঠান পার করে দিতে পারবেন খুব সহজেই।

মার্কেটে এখন নতুন নতুন ডিজাইনের বিভিন্ন লেহেঙ্গার কালেকশন পাওয়া যায়। পছন্দের কালারের আর নকশার বিয়ের লেহেঙ্গা বেছে নিয়ে পরে ফেল্লেই হল এমনটা যদি হত,তাহলে  কতই না ভালো হত। কিন্তু সব ডিজাইনের লেহেঙ্গা সবাইকে মানায় না। তাই নিজেকে  চিনে নিন প্রথমে। সব মানুষের শরীরের আকৃতি তো  এক রকম নয়। তাই প্রত্যেকেরই নিজস্ব শারীরিক গঠন অনুযায়ী সঠিক লেহেঙ্গা নির্বাচন করা উচিত এবং রঙ ও ধরন বুঝে লেহেঙ্গা নির্বাচন করা উচিত। তা না হলে একটা লেহেঙ্গার জন্য আপনার পুরো বিয়েটাই মাটি হবে।

আপনাকে নিজ গড়ন অনুযায়ী লেহেঙ্গা নির্বাচনের ক্ষেত্রে কিছু বিশেষ ব্যাপার মনে রাখতে হবে, আর তা হলো – 

 

১)গলার দিকে সুন্দর নকশাঃ

আপনার যদি খানিক টা বাড়তি মেদ থাকে তাহলে লেহেঙ্গার উপরের পার্ট এ গলার দিকে একটু নকশা করে বানান।মিলিয়ে হাতায় ও করতে পারেন,এমব্রয়ডারি বা এপ্লিকের মত করে কাপড়ের ও নকশা করে পারেন।কলার দিয়েও পরতে পারেন, কিন্তু যদি আপনার কাধ চওড়া হয় তবে কলার পরিহার করুন। এতে আপনাকে আকর্ষণীয় লাগবে।

২)লেহেঙ্গা যদি সুতি হয়ঃ

সুতি লেহেঙ্গায় যদি মার দেয়া থাকে তবে চেষ্টা করবেন মাড় ছাড়িয়ে নিতে,সংগে থ্রী কোয়ার্টার এর উপরের টপস পরে নিন। ব্যাস!! তবে টপস যাতে ফিটিংস পারফেক্ট হয়। তাহলে আপনাকে খুবেই আকর্ষণীয় লাগবে।

৩)গলায় ডীপ কাটঃ

শুধু স্লিম দেখানো ছাড়াও একটু বেশি অন্য ধরনের আকর্ষনিয় লুক আনতে চাইলে গলায় একটু ডীপ কাট দিয়ে বানাতে পারেন। পিছনের দিকে ডীপ কাটিং এ আপনাকে যেমন সেক্সি লাগবে তেমনি আরো বেশি ভিন্ন ধরনের লুক আসবে। ডীপ নেক গলার কাট এ হাতা খুব বেশি বড় দিবেন না। তাহলে খুবেই আকর্ষণীয় লাগবে।


৪) সেমি পাফ হাতাঃ

যদি ফুল স্লিভ এ আপনার কোনো অসুবিধে থাকে, তবে অন্য উপায় ও আছে, আপনি যদি পাফ হাতার প্রতি বিশেষ দুর্বল হয়ে থাকেন তবুও না পরলেই ভালো, কারন পাফি হাতা একটু বেশি ফোলা ভাব থাকায় আরো বেশি মোটা লাগে। তার চেয়ে যদি পরতেই হয় সেমি পাফ হাতা পরলে বেশ সুন্দর দেখাবে।



আসলে গোলগাল চেহারা হোক বা লম্বা, সবাই ই চাই লেহেঙ্গাতে তাকে আরেকটু স্লিম আর সুন্দর দেখাক। গোল মুখের যারা তাদের একটু ট্রিকি হয়ে টপস বানালেই অনেক বেশি আকর্ষনীয় আর স্লিম দেখায়।


পার্টিতে কিভাবে লেহেঙ্গা পরলে আপনাকে আকর্ষণীয় লাগবে

লেহেঙ্গাকে যদি ভিন্ন ভিন্ন স্টাইলে পরতে পারেন, তাহলে লুকটা বদলে যায় এবং একই লেহেঙ্গাকে ভিন্ন অনুষ্ঠানে বার বার ব্যবহার করতে পারেন।


১. হাতের সাথে বেধেঁ নিন-

আপনাকে আকর্ষণীয় দেখতে লেহেঙ্গার ওড়নাকে ভাঁজ করে ডান কাধে দিয়ে সামনে আচল রাখুন। সামনে ওড়না আপনার হাটুরঁ নিচ পর্যন্ত লম্বা রাখুন। কাধে সেফটিপিন দিয়ে আটকে নিন। অন্য প্রান্তটি সামনে এনে ভাজ করে হাতের সাথে পেচিয়ে নিয়ে সেফটিপিন দিয়ে আটকে নিন।আগে পিন দিয়ে আটকে তারপর সেটিতে হাত গলিয়ে নিন।

২. হাফ শাড়ী স্টাইল-

আপনি যদি মোটা হন তবে এ স্টাইল এ পরতে পারেন।এই স্টাইলে কোমরে কাপড় জড়িয়ে থাকে বলে বেশ স্লিম মনে হয়।ওড়নার একটি প্রান্তভাজঁ করে ডান পাশ দিয়ে এনে বাম কাধে সেফটিপিন দিয়ে আটকে নিন। অন্য প্রান্তটি বাম দিকের কোমরের পাশ দিয়ে কোমরের ডান দিকের কাছাকাছি গুজে নিন। সামনের দিকটাতে দেখতে যেন ভি শেপ মনে হয় আর পিছনে কোমরের দিকটাতে যেন লুজ না থাকে সেটা নিশ্চিত করুন।

৩. ফ্লোয়িং স্টাইল-

যদি আপনার লেহেঙ্গার ওড়নার কাজ বেশ ভারী হয় এবং আপনি চান ওড়নার কাজে সবার মনোযোগ থাকুক তাহলে এই স্টাইলে পড়তে পারেন। এতে একই সঙ্গে আপনি আপনার প্রবলেম এরিয়া গুলো ঢেকে রাখতে পারবেন এবং ওড়নার সৌন্দর্য তুলে ধরতে পারবেন।

4. বাঙ্গালী স্টাইল-

বাঙ্গালী শাড়ী পরার ধরন থেকে এই ষ্টাইলটি করা হয়েছে। ওড়না ভাজ করে সেফটিপিন দিয়ে ডান কাধের উপর আটকে নিন। সামনে থেকে ওড়নার একটি প্রান্ত আপনার কোমরে পেচিঁয়ে নিয়ে কোমরের পাশে গুজে নিন। এবার পেছনের প্রান্ত থেকে একটি কোনা ধরে সামনে দিয়ে বাম কাধের উপর ভাজ করে এমন ভাকে সেফটিপিন দিয়ে আটকাবেন যেন শাড়ীর বর্ডার শুধু দেখা যায়।

এসব দিক বিবেচনা করে বিয়ের লেহেঙ্গা পছন্দ করতে পারেন।তাহলে আপনাকে খুব মানাবে।

Want to use our secret face pack? Visit paikarighor

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This div height required for enabling the sticky sidebar
Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views : Ad Clicks :Ad Views :